মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

উপজেলার গ্রাম পুলিশ ডাটাবেইজ

দৌলতপুর উপজেলার গ্রাম পুলিশ ডাটাবেইজ নিম্নে দেওয়া হইল ডাটাবেইজটি ডাউন লোড করে দেখতে হবে।

ক্রমিক নং

নামঃ

পদবী

মোবাইল নং

ওয়ার্ড

ইউনিয়ন

মোঃ মহিরউদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৯৪১৩৯৫৫৩১

৩ নং

ফিনিপনগর

মোঃ মকবুল হোসেন

গ্রাম পুলিশ

০১৯৪০২০৭১০১

নং

প্রাগপুর

মোঃ আত্তাব আলী

গ্রাম পুলিশ

০১৭৪০০০৬০৪০

নং

প্রাগপুর

মোঃ আনারুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৭৫৬০৪৯৫৭

নং

প্রাগপুর

মোঃ আব্দুল কুদ্দুস

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৭৫৭৭৮০৩২৯

নং

প্রাগপুর

মোঃ আনোয়ার হোসেন

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৭৬৩১৮০৭৬৯

নং

প্রাগপুর

মোঃ ইসমাইল হোসেন

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৭৩৯৩৮৮২৮০

নং

প্রাগপুর

মোঃ মিঠুন আলী

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৭৪০০৪১৫৯৩

নং

প্রাগপুর

মোঃ সামীম রেজা

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৭৮৩৩৪৯০৮৯

নং

প্রাগপুর

১০

মোঃ সাহাবুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ ( মহাল্লাদার )

০১৮১১১৯২৭৫০

নং

প্রাগপুর

১১

মোঃ আনারুল

গ্রাম পুলিশ

০১৭৯২০৩৯২৫০

নং

খলিসাকুণ্ডি

১২

মোঃ বিছার উদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৯৯৯৩৬৫২০৫

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৩

মোঃ আব্দুর রশিদ

গ্রাম পুলিশ(দফাদার)

০১৭৩৪০১৯১৮১

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৪

মোঃ আব্দুল হালিম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৪৫২১৯৩১৭

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৫

মোঃ খান সাহেব

গ্রাম পুলিশ

 

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৬

মোঃ লালন হোসেন

গ্রাম পুলিশ

০১৭৪০৬২৩৪৮৪

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৭

মোঃ মতিয়ার রাহমান

গ্রাম পুলিশ

০১৭৪২২৭২৫৩৯

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৮

মোঃ উকিল উদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৭৪৫২১৯৩১৮

নং

খলিসাকুণ্ডি

১৯

শ্রী ভজ হরী

গ্রাম পুলিশ

 

 

খলিসাকুণ্ডি

২০

মোঃ বানেজ উদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

 

১ নং

রামকৃষ্ণপুর

২১

মোঃ হিরন আলী

গ্রাম পুলিশ

০১৭৬৫৪৬৫৭৩২

২ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২২

মোঃ আমিনুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৮৮৬৫৪৫৪১

৩ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৩

মোঃ নাহারুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৬০৯২৫২৬৪

৪ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৪

টেংগুর আলী

গ্রাম পুলিশ

০১৭৩০৯৭২৪৪২

৫ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৫

মোঃ আশরাফুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৫৬৮৯৯২৪৮

৬ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৬

মোঃ আলাউদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৭৭৫৯০৭৮৯০

৭ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৭

মোঃ রাশেদুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৭৬৫০৩১৪৩

৮ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৮

মোঃ সাহালম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৫৮৯৯৩০২৮

৯ নং

রামকৃষ্ণ পুর

২৯

মোঃ জহুরুল  ইসলাম

দফাদার

০১৭৪৮৩৬৯৯০৩

 

রামকৃষ্ণ পুর

৩০

নুর মোহাম্মদ

দফাদার

০১৭৩২০৬৩৪৩১

 

পিয়ারপুর

৩১

মোঃ আনারুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৬৩৮৬৮৫৭৭

 

ফিলিপনগর

৩২

মোঃ নাসিরউদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৮১৩৮০৬০১২

 

ফিলিপনগর

৩৩

মোঃ ভেগলশাহাজুল হক মন্ডল

গ্রাম পুলিশ

০১৭৩৬৭৩৮৩২৩

 

ফিলিপনগর

৩৪

মোঃ মানিক সর্দার

গ্রাম পুলিশ

০১৭৮৪৫০৭৫০৫

 

ফিলিপনগর

৩৫

মোঃ শাহাবুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৩৯৮৯২৪১৬

 

ফিলিপনগর

৩৬

মোঃ মুনজিল দফাদার

গ্রাম পুলিশ

০১৭৪৭১২০০৯৪

 

ফিলিপনগর

৩৭

মোঃ আরোজ আলী

গ্রাম পুলিশ

০১৭৩৫৮৩১৭১৬

 

বোয়ালিয়া

৩৮

মোঃ আসাদুল  আলম

গ্রাম পুলিশ

০১৭২৫১৮০৬৮২

 

বোয়ালিয়া

৩৯

মোঃ আতারুল ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৬৭৩৩৮২০৪

 

বোয়ালিয়া

৪০

মোঃ খবির উদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৭৮৩৩১৭৯৯৫

 

বোয়ালিয়া

৪১

মোঃ মিরাজুল  ইসলাম

গ্রাম পুলিশ

০১৭৩১৪৩৪৫১৬

 

বোয়ালিয়া

৪২

মোঃ আব্দুল মজিদ

গ্রাম পুলিশ

০১৭৫৯৮০১৮১৬

 

বোয়ালিয়া

৪৩

মোঃ মসলেম উদ্দিন

গ্রাম পুলিশ

০১৮৬০২২৯১৩৫

 

বোয়ালিয়া

৪৪

মো: সেলিম রেজা

গ্রামপুলিশ

০১৭৫৩-৮৩১১৬২

 

বোয়ালিয়া

৪৫

মো: শহিদুল ইসলাম

গ্রামপুলিশ

০১৭৭৫-০৫৬০৮৫

 

বোয়ালিয়া

৪৬

মো: শওকত আলী

গ্রামপুলিশ

০১৭৯৫-৯৭৩১৮৯

 

বোয়ালিয়া

৪৭

মো: নাসির উদ্দিন

গ্রামপুলিশ

০১৭৯০-২৮৫৪১৬

 

রিফাইতপুর

৪৮

মো: আজিজুল হক

গ্রামপুলিশ

০১৭৫৩-৬৯১০৯৩

 

আড়িয়া

৪৯

মো: আব্দুর রহিম

গ্রামপুলিশ

০১৭৩৫-৩৩৬৪৯২

 

আড়িয়া

৫০

মো: ছেরমত আলী

গ্রামপুলিশ

০১৭৯১-৪২৮৮০৫

 

আড়িয়া

৫১

মো: জয়নাল হক

গ্রামপুলিশ

০১৭৯২-৯৮৮২২৫

 

আড়িয়া

৫২

মো: বকুল হোসেন

গ্রামপুলিশ

০১৭৫৫-২০০৯৯১

 

আড়িয়া

৫৩

মো: বজলুর রহমান

গ্রামপুলিশ

০১৭২২-৬৬৯৮৭১

 

আড়িয়া

৫৪

মো: ভাদু মোল্লা

গ্রামপুলিশ

০১৯৯২-৩১৬০০৩

 

আড়িয়া

৫৫

মো: মিন্টু আলী

গ্রামপুলিশ

০১৭২৮৯২৩২৯৯

 

আড়িয়া

৫৬

মো: রিয়াজ উদ্দিন

গ্রামপুলিশ

০১৭৩৯-৯৩৯৩৭০

 

আড়িয়া

৫৭

শ্রী রবী দাস

গ্রামপুলিশ

০১৭৩৪-০১৫৮৭৪

 

আড়িয়া

দৌলতপুর উপজেলা কুষ্টিয়া জেলার অধীনে একটি উপজেলা। দৌলতপুর উপজেলার আয়তন ৪৬১ বর্গ কিলোমিটার। এর উত্তরে বাঘা ও লালপুর, দক্ষিণে গাংনী ও মিরপুর, পুর্বে ভেড়ামারা ও মিরপুর উপজেলা এবং পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ। মাথাভাঙ্গা ও পদ্মা এই উপজেলার প্রধান নদী। এছাড়া হিসনা নামের আরো একটি নদী দৌলতপুর উপজেলার মাঝ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

১৯৮৩ সালে দৌলতপুর থানাকে উপজেলা হিসেবে ঘোষনা করা হয়। দৌলতপুর উপজেলায় ১৪টি ইউনিয়ন, ১৬১টি মৌজা ও ২৪২টি গ্রাম রয়েছে।

দৌলতপুর উপজেলার শিক্ষিতের হার ২০.৫%; যার মধ্যে ২৫% পুরুষ ও ১৫.৭% মহিলা। এই উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগূলোর মধ্যে রয়েছেঃ মহাবিদ্যালয়ঃ ১১ টি, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ঃ ৪৫ টি, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ঃ ১০৫ টি, বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ঃ ৮২ টি, মাদ্রাসাঃ ৩৫টি, ভকেশনাল প্রশিক্ষন কেন্দ্রঃ ১ টি এবং এতিমখানাঃ ১ টি

কৃতী ব্যক্তিদের ভিতরে আছেনঃ

গ্রাম পুলিশ কাজ

 

গ্রামপুলিশের সদস্যদেরকে যে কোন নাম বা উপাধিতেই ডাকা হোক না কেন তারা স্থানীয়সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) অধ্যাদেশ, ১৯৮৩ এর তফসীল-১ এর ২য় অংশে বর্ণিত ক্ষমতাপ্রয়োগ এবং কর্তব্য পালন করেন।

 

গ্রাম পুলিশের ক্ষমতা ও কার্যাবলী

  • একজন গ্রাম পুলিশ দিনে ও রাতে ইউনিয়নে পাহাড়া ও টহলদারী করেন।
  • অপরাধের সংগে সংশ্লিষ্ট সকল বিষয় অনুসন্ধান ও দমন করেন এবং অপরাধীদের গ্রেফতার করতে সাধ্যমত পুলিশকে সহায়তা করেন।
  • চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন পরিষদকে সরকারী দায়িত্ব পালনে সহায়তা করেন।
  •  অন্য নির্দেশ না থাকলে প্রতি পনের দিন অন্তর এলাকার অবস্থা সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করেন।
  • ইউনিয়নেরখারাপ চরিত্রের লোকেদের গতিবিধি লক্ষ্য করেন এবং মাঝে মাঝে থানারভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। পাশের এলাকা থেকে আগত কোন সন্দেহজনকব্যক্তির উপস্থিতি সম্পর্কেও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করেন।
  • ইউনিয়নেলুকিয়ে থাকা কোন ব্যক্তি, যার জীবন ধারণের জন্য প্রকাশ্য কোন আয় নেই বা যেতার নিজের পরিচয় সম্পর্কে সন্তোষজনক কোন জবাব দিতে পারেনা, এমন লোকসম্পর্কে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট রিপোর্ট প্রদান করেন।
  • থানারভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে সে সকল বিষয় সম্পর্কে অবহিত করেন, যা বিরোধ, দাংগা-হাংগামা বা তুমুল কলহ সৃষ্টি করতে পারে এবং জনগণের শান্তি বিঘ্নিতকরতে পারে।
  • ইউনিয়নেনিম্নলিখিত অপরাধ ঘটলে বা ঘটার সম্ভবনা সম্পর্কে কোন তথ্য জানতে পারলে তাদ্রুত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত  করেন। যেমন-
  • দাংগা-হাংগামা,
  • গোপনে মৃতদেহ সরিয়ে জন্ম সংক্রান্ত তথ্য গোপন করা,
  • কোন শিশুকে বাড়ি হতে বের করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়া,
  • আগুনের সাহায্যে সংঘটিত ক্ষতি,
  • বিষ প্রয়োগে গবাদিপশুর অনিষ্ট বা ক্ষতি করা,
  • নরহত্যা বা আত্মহত্যার প্রচেষ্টা এবং উপরে উল্লেখিত অপরাধ সংঘটন বা অপরাধ সংঘটন করার চেষ্টা।
    1. আমলযোগ্যঅপরাধের সাথে জড়িত কোন ব্যক্তি বা যার বিরুদ্ধে যথার্থ অভিযোগ উত্থাপন করাহয়েছে বা বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পাওয়া গেছে বা কোন অপরাধমূলক কাজের সহিত জড়িতথাকার যুক্তিসংগত কারন রয়েছে।
    2. বৈধ কারন ছাড়াই কোন ব্যক্তির কাছে ঘর ভাঙ্গার সরঞ্জাম পাওয়া গেলে।
    3. সরকারের কোন আদেশ বলে বা ১৮৯৮ সালের ফৌজদারী কার্যবিধির (১৮৯৮ সালের ৫ নং আইন) অধীন কোন ব্যক্তিকে যদি অপরাধী ঘোষণা করা হয়।
    4. যেকোন ব্যক্তি যার অধিকারে এমন সকল দ্রব্য বা মাল রয়েছে যা চোরাই মাল বলেসন্দেহ করার যথার্থ কারন রয়েছে বা এ মাল দেখে সে কোন অপরাধ সংঘটনের সাথেজড়িত আছে বলে যথার্থভাবে সন্দেহ হলে।
    5. বৈধ হেফাজত বা তত্ত্বাবধান হতে কোন ব্যক্তি পালিয়ে গেলে বা পালাবার চেষ্টা করলে।
    6. কোন ব্যক্তি কোন সরকারী কর্মচারীকে তার সরকারী দায়িত্ব পালনে বাঁধা দিলে।
    7. এমন কোন ব্যক্তি যাকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী,নৌ-বাহিনী বা বিমান বাহিনীর পলাতক সৈনিক বলে যথার্থভাবে সন্দেহ হলে।
    8. মুক্তিপ্রাপ্ত কোন অপরাধী ১৮৯৮ সালের ফৌজদারী কার্যবিধির (১৮৯৮ সালের ৫ নং আইন ৫৬৫ ধারায়) (৩) উপধারার কোন বিধান ভংগ করলে ।
  • উপরেউল্লেখিত অনুচ্ছেদে বর্ণিত অপরাধ অথবা আদালতে গ্রহণযোগ্য যেকোন অপরাধ বন্ধকরতে বা বন্ধ করার ক্ষেত্রে মধ্যস্থতা করার ক্ষেত্রে যথাসাধ্য চেষ্টাকরেন।
  • জন্ম ও মৃত্যু রেজিস্ট্রার সংরক্ষণ এবং জন্ম ও মুত্যু সম্পর্কে ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করেন।
  • মানুষবা পশু বা ফসলের মধ্যে কোন মহামারী বা সংক্রামক রোগ বা পোকার আক্রমণব্যাপক আকারে দেখা দিলে সাথে সাথে ইউনিয়ন পরিষদকে এ সম্পর্কে অবহিত করেন।
  • কোন বাঁধে বা সেচে ক্ষতি বা ত্রুটি দেখা দিলে অনতিবিলম্বে ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করেন।
  • সরকারী কাজের উদ্দেশ্যে যেকোন স্থানীয় তথ্য সরবরাহ করেন।
  • খাজনা বা ভূমি উন্নয়ন কর,স্থানীয় কর,ফি বা অন্য পাওনা সংগ্রহ ও আদায়ে তিনি রাজস্ব কর্মচারীদের সহায়তা করেন।
  • অধ্যাদেশের অধীনে কোন অপরাধ সংঘটন বা সংঘটনের অভিপ্রায় সম্পর্কে জ্ঞাত হলে বা জানতে পারলে তা ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত করেন।
  • ইউনিয়নপরিষদের বা ইউনিয়ন পরিষদের অধিকারে ন্যস্ত কোন স্থাবর বা অস্থাবরসম্পত্তির ক্ষতি সাধন বা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি বা অন্যায় দখল সম্পর্কে তিনিঅবিলম্বে ইউনিয়ন পরিষদকে অবহিত এবং এ ধরণের ক্ষতি,প্রতিবন্ধকতা বা অন্যায়দখল রোধ করার জন্য মধ্যস্থতা করেন।
  • ইউনিয়ন পরিষদের নির্দেশে কোন বাসিন্দার আবাসস্থল বা সম্পত্তির উপর পরোয়ানা জারি করেন।
  • গ্রাম পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেটের আদেশ ও ওয়ারেন্ট বা গ্রেফতারী পরোয়ানা ছাড়াই নিম্নলিখিত ক্ষেত্রে গ্রেফতার করতে পারেন:
  • সাধারণলোক কোন ব্যক্তিকে বৈধভাবে গ্রেফতার করলে তিনি তাদের সাহায্য করেন এবংদেরী না করে এধরণের গ্রেফতার সম্পর্কে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিতকরেন।
  • গ্রামে কর্মরতসরকারী কর্মচারী বা কোন সাধারণ লোক সাময়িক ভাবে বলবৎকোন আইন বলে কোনব্যক্তিকে গ্রেফতার করলে তিনি তার দায়িত্ব গ্রহণ করেন এবং তিনি যে ব্যক্তিরবা ব্যক্তিবর্গের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন বা তিনি নিজেই যে ব্যক্তি বাব্যক্তিদের গ্রেফতার করেছেন তাদেরকে অনতিবিলম্বে থানার ভারপ্রাপ্তকর্মকর্তার নিকট হাজির করবেন। তবে শর্ত থাকে যে, রাতের অন্ধকারে কোনব্যক্তি বা ব্যক্তিদের গ্রেফতার করা হলে তাকে বা তাদেরকে গ্রামে বৈধতত্ত্বাবধানে রাখা যেতে পারে। কিন্তু পরদিন সকালে সম্ভাব্য তাড়াতাড়ি সময়েতাদেরকে থানায় হাজির করতে হয়।
  • বিভিন্নসময়ে আইন অনুযায়ী তার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন। উপরোক্ত কার্যাবিলীছাড়াও গ্রাম পুলিশ এলাকার বিভিন্ন ধর্মীয়, সামাজিক ও সাংস্কৃতিকপ্রতিষ্ঠানের সদস্য হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।
  • অস্বাভাবিক মৃত্যু বা খুনের ক্ষেত্রে লাশ পাহাড়া দেন এবং থানায় পৌঁছনো পর্যন্ত লাশের সঙ্গে থাকেন।
  • এলাকায় থানার পুলিশ এলে সবসময় তাদের সাথে থাকেন।
  • উঁচু পর্যায়ের সরকারী কর্মকর্তাগণ পরিদর্শনে এলে তাদেরকে সার্বিক সহায়তা করেন।
  • আদালতের মামলা মোকদ্দমার তারিখ জারি এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের আদেশ অনুসারে কাজ করেন।
  • গ্রাম আদালতে বিচার চলাকালে উপস্থিত থাকেন।
  • গ্রাম পুলিশগণ থানা এবং ইউনিয়ন পরিষদের যৌথ নিয়ন্ত্রণে কাজ করেন; প্রতি সপ্তাহে তারা থানা এবং সময় সময় ইউনিয়ন পরিষদে হাজিরা দেন।

১। শাহ আজিজুর রহমানঃ বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। শাহ আজিজুর রহমান কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলাই জন্মগ্রহন করেন।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :
Facebook Twitter